কিভাবে ডটকম এর এই জগতে নিজের একটা স্থান করে নেবেন? আমি কিভাবে করেছি? কিভাবে বুঝবেন কোন স্কিল গুলো শেখা উচিত? কোনগুলো আসলেই স্কিল এবং কোনগুলো আপনাকে সারাজীবন এই ডটকম এর দুনিয়াতে কাজ পাইয়ে দেবে? 

বই টি একদম নতুন যারা- যারা কখনো ডটকম এর এই জগতে ১ ডলার ও আয় করেন নি তাদের জন্য লেখা 

Contact "Khalid Farhan" through Facebook Messenger

বই টি কিনুন এখানে ক্লিক করে

                                    Dotcom Paradox

 

dotcom paradox
১১ টি চ্যাপ্টারের, ৫৪ পাতার এই ইবুক টিতে আমি কথা বলেছি বেশ কিছু বিষয়েঃ 
  • আমার প্রথম অনলাইন ব্যবসা, কিভাবে আমি বাংলাদেশের প্রথম দিককার একটি এফ-কমার্স ব্যবসা দাঁড় করিয়েছিলাম
  • কিভাবে আমি আসলে ফ্রিল্যান্সিং এর জগতে আসলাম এবং সেখান থেকে কিভাবে এফিলিয়েট মার্কেটিং হয়ে ডিজিটাল মার্কেটিং এর জগতে প্রবেশ করলাম
  • অনলাইন জগতে কিছু শুরু করার জন্য আসলে কিভাবে আগাতে হয়? স্টেপ গুলো কি কি? ভ্যালু জার্নি ব্যপার টা কি? কিভাবে বুঝবো যে আমি কি শিখবো আর কি শিখবো না? 

অনলাইন জগতে আমার শুরু টা হয় কলেজ এ পড়ার সময়, ২০১১-২০১২ এর দিকে।

এখন ২০১৮। এই ৭ বছরে আমি যা যা দেখেছি, যা যা করেছি সব কিছু নিয়েই কথা বলেছি বইটি তে। ১১ চ্যাপ্টার এর একটি বই লেখা কষ্টকর কিন্তু যেহেতু নিজের কথাই বলেছি, নিজের পুরো জার্নি টির কথা বলেছি, সেরকম কষ্ট মনে হয় নি। 

ই-এন্ট্রেপ্রেনারশিপ বা অনলাইনে ক্যারিয়ার গড়ার জগত টা একটু অন্যরকম। এই জগতে শুধু মাত্র স্কিল কথা বলে। আপনার মামা-খালু থাকুক বা না থাকুক, কিছুই যায় আসে না তাতে। একই সাথে, আপনি কোন কলেজ বা ইউনিভার্সিটির ডিগ্রি নিয়ে বসে আছেন তাতেও কিছু আসে যায় না। একমাত্র আপনার স্কিল আছে কি না এবং সেই স্কিল দিয়ে আপনি নিজেকে মার্কেট করতে পারছেন কি না, তার উপর নির্ভর করে আপনি অনলাইনে সফল হবেন নাকি হবেন না। 

বেশির ভাগ মানুষ এখনো মনে করেন, অনলাইনে কোন কাজ করে সফল হওয়া হয়তো সহজ অফলাইন থেকে। এর থেকে ভুল ধারণা খুব কম ই আছে। অনলাইনের প্রতিটি কাজের পেছনে থাকে অধ্যবসায় এবং আমি অনেক কেই দেখেছি যারা অনেক স্কিলফুল হবার পরেও এই ডটকম এর জগতে কিছু করতে পারে নি। অনেকে আবার স্কিলফুল হয়ে ডটকম এর জগতে কোন ক্লায়েন্ট এর জন্য কিছু করতে না চেয়ে নিজেই একটি ব্যবসা শুরু করেছে অন্যদিকে। 

এই জগৎ টা ক্ষণে ক্ষণে বদলায় কিন্তু একটা ব্যপার সব সময় ঠিক থাকে। 

যদি কেউ আসলেই কাজ জেনে থাকে তাহলে তার কখনোই কাজের অভাব হয় না ডটকম এর দুনিয়া তে।

বই এর শুরুর দিকের একটা চ্যাপ্টারে আমি আমার শুরুর গল্প টা বলেছি। আমি শুরু করেছিলাম একজন রাইটার হিসেবে। ৫০০ ওয়ার্ড লিখলে ১ ডলার পেতাম আমি। ৫০০ ওয়ার্ড লিখতে সময় লাগতো ১ ঘণ্টা। ১ ডলার মানে ৮০ টাকা। এক জন রিকশাওয়ালা হয়তো সেসময় আমার থেকে বেশি আয় করতো। 

কিন্তু সেই ৫০০ ওয়ার্ড লেখা আমি কিন্তু ৬ ডিজিটের ডলারের অঙ্ক ও ছুতে পেরেছি। ডটকম জগত না হলে হয়তো তা সম্ভব হত না কোনদিন ও।

আমি কখনো কাউকে মিথ্যা আশা দেই নি। আজকেও দেবো না। বাংলাদেশে অনলাইন বলুন বা অফলাইন বলুন, সফল থেকে ব্যার্থ মানুষের সংখ্যা বেশি। একটা কারণ সঠিক দিক নির্দেশনা না পাওয়া কিন্তু তার থেকেও বড় কারণ হল নিজের অনীহা এবং কাজ করতে না চাওয়ার মানসিকতা। 

ডটকম প্যারাডক্স আপনাকে সেই মানসিকতা থেকে বের হতে সহায়তা করবে। 

এবং ডটকম প্যারাডক্স এর বিক্রি থেকে পাওয়া সব অর্থ কোন একটি দাতব্য সংস্থায় দান করে দেয়া হবে।  

khalid farhan

আমি কে?

আমার নাম, খালিদ ফারহান ইংরেজি তে লিখে গুগল করলে আমার ব্যপারে বেশ অনেক গুলো ইন্টারেস্টিং তথ্য জানা যায়। সহজ করে বললে আমি একজন ইন্টারনেট অন্ট্রোপ্রেনার। ইন্টারনেট অন্ট্রোপ্রেনার এর কনসেপ্ট টা বাংলাদেশে ঠিক পরিচিত না। বাংলাদেশের মানুষ এখনো সেভাবে জানে না ইন্টারনেট উদ্যোক্তা কারা, তারা কি করে, কিভাবে কাজ করে বা কি হয়। সহজ সংজ্ঞা টা হল এরকম "যারা ইন্টারনেট এর মাধ্যমেই নিজেদের জীবিকা নির্বাহ করে পুরোপুরি, তারাই ইন্টারনেট উদ্যোক্তা" 

বই টি কিনুন এখানে ক্লিক করে